1. multicare.net@gmail.com : দৈনিক জামালপুরসংবাদ ২৪ :
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৬:০৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
নেপাল-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশীপ আ্যওয়ার্ড ২০২৪ পদকে ভুষিত হলেন অধ্যাপক হরিদাস রায় ছাতকে মুক্তিরগাঁও সঃ প্রাঃ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিদায় সংবর্ধনা রাত পোহালেই মণিপুরী সম্প্রদায়ের অভিভাবক সংগঠন “মসকস”র নির্বাচন দেশবাসীসহ গাজীপুরবাসীকে পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন গাসিক কাউন্সিলর খালেদুর রহমান রাসেল টঙ্গীতে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য আনুষ্ঠানিক কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করেন,,, গাসিক কাউন্সিলর খালেদুর রহমান রাসেল ৯ মাসে ৭ বার টাঙ্গাইল জেলায় শ্রেষ্ঠ অফিসার নির্বাচিত হলেন মোল্লা আজিজুর রহমান মান্নান ও মানিক সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য নির্বাচিত হলেন চরমহল্লা ইউনিয়নে বোকা নদীতে একটি ব্রিজ নির্মাণের দাবি এলাকাবাসীর পবিত্র ঈদুল আজহার অগ্রিম শুভেচ্ছা জানিয়েছেন পিংনা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফ প্রমানিক   নরসিংদীর শিবপুর বিনা অনুমতিতে প্রতিবছরই গরুর হাট বসান রাখিল

বৃহস্পতিবার ছাতক সুরমা ব্রিজের উদ্বোধন ব্রিজটির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২৩
  • ৪৯ বার পড়া হয়েছে

 

সেলিম মাহবুব, সিলেটঃ
ছাতকে সুরমা নদীর উপর নির্মিত সুরমা ব্রিজের উদ্বোধন হলো আজ ১৯ অক্টোবর বৃহস্পতিবার। সকালে ভার্চুয়ালী ভাবে স্থানীয় অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে ব্রিজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ব্রিজ উদ্বোধন উপলক্ষে ব্রিজের টোল প্লাজার পাশে এক উদ্বোধনী সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ছাতক-দোয়ারা নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক। ছাতক ও দোয়ারাবাজার উপজেলাবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্নের এই ব্রিজের উদ্বোধনের তারিখ দু’দফা পিছিয়ে গেছে। গত বছরের ২৯ অক্টোবর ব্রিজটি উদ্বোধনের লক্ষ্যে শেষমূহর্তের কাজ করা হয়েছে দ্রুত গতিতে হলে ও বিভিন্ন কারণে ব্রিজটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়নি। সংশ্লিষ্ট সূত্র থেকে জানা যায়, ২০০৫ সালের ২৩ আগস্ট ছাতকে সুরমা নদীতে ব্রিজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন তৎকালিন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া। সরকারের একটি বিশেষ প্রকল্পের আওতায় ২০০৬ সালের জানুয়ারিতে ১৮ কোটি টাকা ব্যয়ে শুরু হয় ব্রিজটির নির্মাণ কাজ। সময় বেঁধে দেয়া হয়েছিলো তিন বছর। কাজ শুরুর এক বছরের মধ্যে ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ব্রিজের চারটি স্তম্ভ (পিলার) নির্মাণ করা হয়। ২০০৭ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ক্ষমতায় আসার পর এই ব্রিজটির নির্মাণ কাজ বন্ধ হয়ে যায়। এরপর প্রকল্পটি এডিপি (বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি) থেকে বাতিল করা হয়। ২০১০ সালে এই ব্রিজটির অসমাপ্ত কাজ শেষ করার জন্য ৫১ কোটি টাকার একটি নতুন সংশোধিত প্রকল্প যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ে অনুমোদনের জন্য প্রেরণ করা হয়।এ আবেদনের পরে আবার নতুন করে ২০২০ সালে ১১৩ কোটি টাকার একটি প্রকল্প অনুমোদনের জন্য সওজ এর প্রধান কার্যালয়ে পাঠানো হয়। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ (একনেকে) সভায় ১১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে সুরমা ব্রিজের পুনঃনির্মাণ প্রকল্পটি অনুমোদন লাভ করে। এরপর নেভিগেশন, এ্যাপ্রোচ, ভূমি অধিগ্রহণসহ দফায় দফায় কয়েকটি প্রকল্প অনুমোদন করে ব্রিজের কাজ শুরু করা হয়। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দীর্ঘ ১৭ বছরে অনেক ওজর বাধা-বিপত্তি, গড়িমসি ও চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে অবশেষে বর্তমানে ব্রিজটির নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। গত বছরের জুন মাসে ব্রিজটি উদ্বোধনের কথা থাকলেও ভয়াবহ বন্যার প্রচণ্ড স্রোতে এ্যাপ্রোচ রোড ভেঙ্গে যায় এতে ব্রিজটি চালু করা সম্ভব হয়নি। পরবর্তীতে ২৯ অক্টোবর ২য় দফা উদ্বোধনের তারিখ ঘোষণা করে ঘুর্ণিঝড় সিত্রাং’র কারণে তা স্থগিত করা হয়। ব্রিজের উপর দিয়ে বর্তমানে যান চলাচল করছে। ১৯ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকালে ছাতক সুরমা ব্রিজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।##

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
Theme Customized BY LatestNews